২০২৪ সালে দুর্দান্ত ১১টি ছোট ব্যবসার আইডিয়া ,মাসে আয় ৫০ হাজার টাকা ।

আপনি কি ছোট ব্যবসার আইডিয়া সম্পর্কে জানতে চান ? তাহলে এই লেখাটি শুধু আপনার জন্য।
বর্তমান সময়ে অধিকাংশ মানুষ ব্যবসা করার আগ্রহ বোধ করে। ব্যবসার প্রতি তাদের এক ধরনের ভালোবাসা রয়েছে।

কিন্তু সমস্যা হল টাকার অভাবের কারণে এবং আইডিয়া না থাকার কারণে ব্যবসা শুরু করতে পারছে না ।

আপনি জেনে খুশি হবেন বর্তমানে খুব কম পুঁজি দিয়ে ব্যবসা শুরু করা যায়। আর এ ব্যবসাগুলোর লাভ অনেক বেশি।

তাই আপনাদের কথা ভেবে ছোট ব্যবসার আইডিয়া নিয়ে আলোচনা করব। এই ব্যবসা করার জন্য নানান খুঁটিনাটি বিষয় গুলো তুলে ধরব।

যাতে করে আপনি খুব অনায়াসেই এই ব্যবসা গুলো করতে পারেন। অতএব আপনাকে সম্পূর্ণ লেখাটি পড়তে হবে।

তাহলে আপনি আপনার কাঙ্খিত প্রশ্নের উত্তর পেয়ে যাবেন। চলুন আলোচনা শুরু করা যাক।

ছোট ব্যবসার আইডিয়া

ছোট ব্যবসার আইডিয়া ২০২৪

আপনাদের সুবিধার্থে আমি এখানে এমন ১১টি ব্যবসাগুলো নিয়ে আলোচনা করব যে ব্যবসাগুলো অল্পপুজি দিয়ে শুরু করতে পারবেন । এই ব্যবসাগুলোর মধ্যে লাভ অনেক বেশি ।

যদি আপনি সময় দেন এবং পরিশ্রম করেন তাহলে অল্প সময়ের মধ্যে সফলতার উচ্চ শিখরে পৌঁছে যাবেন।

১. বুটিক সেবা দিতে পারেন । 

ছোটখাটো ব্যবসার আইডিয়া হিসেবে বুটিক সেবা দিতে পারেন । বুটিক সেবা হলো একটি আকর্ষণীয় এবং একটি উত্কৃষ্ট অভিজ্ঞতা সরবরাহ করার ব্যবসার ধরণ।

এটি সাধারণভাবে বিশেষভাবে ডিজাইন করা এবং মানুষদের জন্য প্রাইভেট এবং ব্যক্তিগত পরিসেবা প্রদান করে।

বুটিক সেবা বিভিন্ন কাউন্টার,শপিং স্টোর, গল্ফ ক্লাব , রেস্টুরেন্ট, হোটেল, স্পা, সালন, , ভিলা, মোটেল ইত্যাদি জায়গায় প্রয়োজনীয় হতে পারে।

বুটিক সেবা প্রদানের জন্য আপনি নিম্নলিখিত কিছু উপায়ে শুরু করতে পারেন:

  • ট্রেনিং এবং দক্ষতা: আপনি আপনার বুটিক সেবা প্রদান করতে চান তা নিশ্চিত করতে হবে যে আপনি এটি সঠিকভাবে প্রদান করতে পারেন। পেশাদার দক্ষতা এবং পর্যাপ্ত ট্রেনিং প্রাপ্ত করাটি গুরুত্বপূর্ণ।
  • ডিজাইন ও স্থান: আপনি আপনার বুটিক সেবা প্রদানের জন্য আকর্ষণীয় ডিজাইন এবং সুবিধা সরবরাহ করতে হবে। আপনি আপনার বুটিকে ডিকোরেট করতে একজন পেশাদার ইন্টেরিয়র ডিজাইনারের সাথে সম্পৃক্ত হতে পারেন।
  • উচ্চ মানের প্রোডাক্ট: আপনি আপনার বুটিকে উচ্চ মানের প্রোডাক্ট বিক্রি করতে চান এবং আপনার গ্রাহকদের জন্য অদ্ভুত অভিজ্ঞতা সরবরাহ করতে চান।
  • মার্কেটিং এবং প্রচার: আপনি আপনার বুটিক সেবা প্রচার করার জন্য সামাজিক মাধ্যম, ওয়েবসাইট, ইমেল মার্কেটিং, স্পেশাল ইভেন্ট, ব্লগ, বা এই ধরণের অন্যান্য মাধ্যমে মার্কেটিং করতে পারেন।
  • সেবা পরিচালনা: আপনি আপনার গ্রাহকদের জন্য অদ্ভুত সেবা প্রদান করতে হবে, যাতে তারা আপনার বুটিকে পুনরায় আসতে চান।
  • গ্রাহক সম্পর্ক: আপনার গ্রাহকদের সাথে সম্পৃক্ত থাকা এবং তাদের প্রয়োজনীয়তা এবং প্রাথমিকতা বুঝতে গুরুত্বপূর্ণ।

বুটিক সেবা সাফল্য অর্জন করতে আপনার উদ্যোগ, প্রকৃতি, এবং উচ্চ মানের প্রোডাক্ট সরবরাহ করারপ্রস্তুতি করা গুরুত্বপূর্ণ।

২. ছোট ব্যবসার আইডিয়া হিসেবে পোশাকের ব্যবসা করতে পারেন ।

পোশাকের ব্যবসা একটি উত্তম ব্যবসা আইডিয়া হতে পারে, যদি আপনি সঠিকভাবে পরিচালনা করতে পারেন এবং মোডার্ন ডিজাইনের পোশাক তৈরি করতে পারেন।

এই ব্যবসার ধারণা সামগ্রী প্রদান এবং ব্র্যান্ডিং, গুণগত নিরীক্ষণ, সঠিক মানের প্রতিপূর্ণ উপাদানের চয়ন ও কোন্সাইলিং, প্রচার এবং মার্কেটিং ব্যবস্থাপনা, এবং গ্রাহকের সাথে যোগাযোগের প্রয়োজন।

পোশাকের ব্যবসা শুরু করতে নিম্নলিখিত কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ ধাপ নিতে পারেন:

  • ব্যবসার পরিকল্পনা: প্রথমেই, আপনি যে ধরণের পোশাক তৈরি করতে চান তা নির্ধারণ করুন। আপনি কাস্টম পোশাক, প্রাধান্যমূলক পোশাক, শেয়ার্ট, জামা, সাড়ি, বোউসারি, ব্যক্তিগত ডিজাইন ইত্যাদি তৈরি করতে পারেন।
  • সরবরাহকারী ও উপাদান: পোশাক তৈরি করার জন্য উপাদানের জন্য একটি সম্পূর্ণ সরবরাহকারী নির্বাচন করুন। আপনি পোশাকের উপাদান ক্রয় করতে পারেন বা নিজেই তাদের তৈরি করতে পারেন।
  • ডিজাইন ও নমুনা তৈরি: আপনি স্বনিমিত্ত ডিজাইন বা পোশাক নমুনা তৈরি করে তা গ্রাহকদের দেখাতে পারেন এবং তাদের প্রতাশা অনুযায়ী পোশাক তৈরি করতে পারেন।
  • নিরীক্ষণ এবং গুণমান নিশ্চিত করুন: পোশাকের গুণমান জরুরি, সুরক্ষিত এবং সুস্থ্য মানের পোশাক তৈরি করার জন্য নিরীক্ষণ প্রয়োজন।
  • মার্কেটিং এবং প্রচার: আপনি আপনার পোশাক ব্র্যান্ড এবং প্রোডাক্টগুলির জন্য মার্কেটিং করার জন্য সামাজিক মাধ্যম, ওয়েবসাইট, ইমেল মার্কেটিং, প্রয়োজন অনুযায়ী পোশাক শো অথবা ফ্যাশন ইভেন্ট, প্রচার মিডিয়া, ব্লগ, এবং অন্যান্য মাধ্যমে করতে পারেন।
  • গ্রাহকের সাথে যোগাযোগ: আপনার গ্রাহকের সাথে সম্পৃক্ত থাকাটি গুরুত্বপূর্ণ। তাদের প্রয়োজনীয়তা এবং প্রাথমিকতা বুঝতে গ্রাহকের সাথে সম্পর্ক সংরক্ষণ করুন এবং সম্পৃক্ত থাকার জন্য প্রয়োজন যেগুলি করতে হয়।
  • নতুন ফ্যাশন এবং প্রোডাক্ট লিন: মোডার্ন ফ্যাশন এবং পোশাক ডিজাইনের সাথে যোগ করতে সময় সময়ে নতুন ফ্যাশন এবং প্রোডাক্ট লিন তৈরি করা গুরুত্বপূর্ণ।

পোশাকের ব্যবসা সফলতা অর্জন করতে সঠিক উপায়ে মার্কেট এবং গ্রাহকের প্রাথমিকতা পরিস্থিতি এবং গ্রাহকের প্রয়োজনীয়তা প্রাথমিক স্থানে আনা গুরুত্বপূর্ণ।

৩. ছোটখাটো ব্যবসার আইডিয়া হিসেবে বেকারির ব্যবসা করতে পারেন ।

বেকারির ব্যবসা খুবই লাভজনক । এই ব্যবসাটি খুবই চাহিদাপূর্ণ । বিশেষ করে বর্তমান সময়ের ছেলে- মেয়েরা কেক ,পেস্ট্রি কেক ইত্যাদি অনেক পছন্দ করে ।

আর ঘরের চুলায় বানানো নির্ভেজাল কেক বাইরের দোকানের তৈরী কেকের থেকে অনেক ভিন্ন ও মজাদার ।

তাই জন্মদিন বা বিবাহবার্ষিকী ইত্যাদি এরকম বিভিন্ন অনুষ্ঠানে এই সমস্ত কেক অর্ডার নিয়ে বিক্রি করতে পারেন ।

পাশাপাশি অনলাইনে অর্ডার নিয়েও এই সমস্ত কেক বিক্র করতে পারেন । আশা করি আপনি বুঝতে পেরেছেন ।

৪. ফলের রসের ব্যবসা

ছোট ব্যবসার আইডিয়া বাংলাদেশে ফলের রসের ব্যবসা । তৃষ্ণা মেটানোর জন্য সবাই সাধারণত পানি বা কোল্ড ড্রিংকস খেয়ে থাকেন।

ফলের রস খুবই স্বাস্থ্যকর একটি খাবার। এ ব্যবসা অনেক চাহিদা রয়েছে। এ ব্যবসাটি অল্প টাকা দিয়ে খুব সহজে শুরু করতে পারবেন। লাভ অনেক বেশি হয়।

এই ব্যবসা শুরু করার নিয়ম

  • শুরুতেই আপনাকে মেশিন ক্রয় করতে হবে। যদি আপনি বিভিন্ন ফলের রস তৈরি করেন তাহলে অবশ্যই আপনি ব্লেন্ডার ক্রয় করবেন। আর যদি আখের রস বিক্রি করেন তাহলে আখের রস ভাঙ্গানোর মেশিন ক্রয় করবেন।
  • ভালো একটি স্থান নির্বাচন করতে হবে। অর্থাৎ যেখানে লোকসমাগম বেশি হয় ওই রকম স্থান নির্বাচন করবেন। যেমন শহর , গ্রামে হলে বাজার , বাস স্ট্যান্ড , রেল স্টেশন ইত্যাদি।
  • মৌসুম অনুযায়ী ভালো ভালো ফল সংগ্রহ করবেন।
  • ফলের মান যেন অবশ্যই ভালো হয়।
  • নগদে তাজা ফল তৈরি করে বিক্রি করবেন

এ ব্যবসা অনেক লাভ বেশি। কেননা ৪টি কলা দিয়ে আট গ্লাস জুস তৈরি করতে পারবেন। এই ক্লাসগুলো ২০ টাকা হিসেবে প্রায় ১৬০ টাকা বিক্রি করতে পারবেন।

তাহলে বুঝতেই পারছেন এই ব্যবসায় লাভ কত। তাই দেরি না করে আজই এই ব্যবসাটি শুরু করে দিন।

৫. ছোট ব্যবসার আইডিয়া হিসেবে স্টেশনারির ব্যবসা করতে পারেন ।

স্টেশনারির ব্যবসা খুবই লাভজনক। এই ব্যবসাটি খুব অল্প পুঁজি দিয়ে শুরু করা সম্ভব। এ মাসে অনেক লাভ বেশি।

এই ব্যবসা করার নিয়ম

  • অবশ্যই আপনাকে এই ব্যবসাটি স্কুল কলেজের পাশে করা উচিত। এতে দ্বিগুণ বিক্রি হবে।
  • ষ্টেশনারি জাতীয় পণ্য সংগ্রহ করবেন। যেমন :পেন্সিল ,কলম, জ্যামিতি বক্স ,শার্পনার , খাতা,রাবার , পেন্সিল বক্স , গ্রাফ কাগজ ,আর্ট কাগজ ইত্যাদি এই সব কিছু বিক্রি করতে পারেন ।
  • পাইকারি মার্কেট থেকে পণ্য সংগ্রহ করবেন ।

আশা করি আপনি বুঝতে পেরেছেন। উপরের পদ্ধতি  অনুযায়ী খুব সহজে ব্যবসার শুরু করতে পারবেন।

৬. স্ট্রীট ফুড

ছোটো ব্যবসার আইডিয়া হিসেবে স্ট্রীট ফুড এর ব্যবসা করতে পারেন । এই ব্যবসায় চাহিদা অনেক বেশি । পাশাপাশি লাভ অনেক রয়েছে ।

এ ব্যবসা করার নিয়ম

  • ভালো একটি স্থান নির্বাচন করতে হবে। লোকসমাগম স্থান । যেমন শহরের অলি-গলি , গ্রামে হলে বাজার , বাস স্ট্যান্ড , রেল স্টেশন ইত্যাদি।
  • পিয়াজু , সিঙ্গারা , সমুচা , পাউরুটি , চা ইত্যাদি এবং খাবার বিক্রি করতে পারেন।
  • যেহেতু আপনি স্বল্প পুঁজিতে শুরু করতে চাচ্ছেন। দুইটা অথবা তিনটা টেবিল সাথে বেঞ্চের ব্যবস্থা করবেন।
  • খাবাররের মান অবশ্যই ভালো রাখবেন। যাতে করে গ্রহণ করা পছন্দ করে। এতে করে আপনার কাছে গ্রাহকরা বারবার আসবে।

আশা করি আপনি ভালোভাবে বুঝতে পেরেছেন। এ পদ্ধতি  অবলম্বন করে খুব সহজে এই ব্যবসাটি করতে পারেন।

৭. হস্তশিল্পের ব্যবসা

গ্রামে ছোট ব্যবসার আইডিয়া হিসেবে হস্তশিল্পের ব্যবসা করতে পারেন । হস্তশিল্পের অনেক চাহিদা রয়েছে আমাদের দেশে ।

পোড়ামাটির শিল্প ,কারুকার্য মত হাজারো হস্তশিল্পের সম্ভারে সমৃদ্ধ। নিজেদের সৃজনশীলতা ও মেধা কাজে লাগিয়ে অনেক নতুন নতুন আকর্ষনীয় পণ্যও তৈরি করছে গ্রামীণ শিল্পীরা।

এই সমস্ত হস্তশিল্পের ভান্ডার নিয়ে অল্প পুঁজিতে অনলাইন ব্যবসা করতে পারেন । অনেক লাভ করা সম্ভব। এছাড়াও আপনার নিজস্ব ডিজাইন দিয়েও পণ্য বানিয়ে অনলাইনে বিক্রি করতে পারেন।

৮.বুটিক ব্যবসা

ছোট ব্যবসার আইডিয়া হিসেবে বুটিক ব্যবসা করতে পারেন । পোশাকের প্রতি আগ্রহবান ব্যক্তিরা নতুন নতুন আকর্ষনীয় পোষাক ক্রয় করতে পছন্দ করে । যা অন্য কেউ এর আগে পরিধান করেনি।

সেই হিসেবে অধিক দাম ক্রয় করতে রাজি হয় এই সমস্ত ক্রেতারা। আর এই সমস্ত ক্রেতাদের চাহিদা পূরণ করার জন্য তৈরি হয়েছে অনেক বুটিকঘর।

যদি সরাসরি দোকান ভাড়া নিতে না পারেন । তাহলে অনলাইনে বিক্রি করতে পারেন । এ জন্য আপনাকে মার্কেটিং করতে হবে ফেসবুক ইত্যদির মাধ্যমে ।

 ৯. ক্যাটারিং 

অল্প বিনিয়োগে বেশি লাভের চমৎকার একটি ব্যবসা হল ক্যাটারিংয়ের ব্যবসা। জন্মদিন , বিয়েবাড়ি , অফিসের যেকোনো অনুষ্ঠানে ক্যাটারিং এর প্রয়োজন পড়ে । তাই এই ব্যবসাটি অনেক চাহিদা পূর্ণ ।

কয়েকজন অভিজ্ঞ লোকের এর মাধ্যমে এই ব্যবসাটি শুরু করতে পারেন। ভালোভাবে সেবা দিতে পারলে এই ব্যবসা থেকে অনেক লাভ করা যাবে।

এই ব্যবসা শুরু করার জন্য অবশ্যই আপনাকে প্রয়োজনীয় আসবাব পত্র ক্রয় করতে হবে ।

১০. টেইলারের কাজ করতে পারেন।

বাড়িতে বসে ছোট ব্যবসার আইডিয়া হিসেবে টেইলারের কাজ করতে পারেন । এই ব্যবসাটি অল্প পুঁজির ক্ষেত্রে খুবই চমৎকার ব্যবসা।

ব্যবসার চাহিদা অনেক বেশি।  বাচ্চাদের কাপড় থেকে শুরু করে বড়দের কাপড় তৈরি করতে পারবেন।

চমৎকার চমৎকার আকর্ষণীয় পোশাক তৈরি করে বিভিন্ন দোকানে দোকানে বিক্রি করতে পারেন।

আবার ইচ্ছা করলে গ্রাহকদের কাছ থেকে অর্ডার নিয়ে সেগুলো তৈরি করে দিতে পারেন। এগুলা আপনি আপনার নিজের বাড়িতে বসেই করতে পারবেন।

এই ব্যবসায় লাভ অনেক বেশি। তাই দেরি না করে আজ এই চমৎকার ব্যবসাটি শুরু করে দিন।

১১. অনলাইনে পড়াতে পারেন।

ছোট ব্যবসার আইডিয়া হিসেবে অনলাইনে পড়াতে পারেন । লাভজনক ব্যবসার মধ্যে এটি হলো একটি ব্যবসা। ভবিষ্যতে এর চাহিদা আরো বাড়বে। অতএব আপনি যে সমস্ত বিষয়ের উপর বেশি অভিজ্ঞতা রাখেন।

ঐ সমস্ত বিষয়ের উপর ভিডিও তৈরি করতে পারেন। এরপর সেগুলো অনলাইনে মার্কেটিং করে বিক্রি করতে পারেন।

আবার ইচ্ছে করলে জুম মিটিং বা গুগল ইত্যাদির মাধ্যমে বিভিন্ন ছাত্রদেরকে পড়াতে পারেন। আর যদি আপনি দিনে দুই থেকে তিন ঘণ্টা এভাবে সময় দেন তাহলে প্রতি মাসে ৫০ থেকে ১ লাখ টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

আরো পড়ুন বর্তমানে সবচেয়ে লাভজনক ব্যবসার ১৬টি আইডিয়া ২০২৪

পরিশেষে বলবো:

উপরে ছোট ব্যবসার আইডিয়া সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা  করলাম। অতএব আপনি যদি এই ব্যবসাগুলো করতে চান ।

তাহলে আপনি ব্যবসা শুরু করে দিবেন উপরের পদ্ধতি অনুযায়ী। লেখা ভালো লেগে থাকলে অবশ্যই জানাবেন। ধন্যবাদ।

FAQ

১ লক্ষ টাকার কম দিয়ে কি ব্যবসা  শুরু করা যায় ?

হ্যাঁ অবশ্যই ১৫ হাজার থেকে শুরু করে ২০ হাজার টাকার মধ্যেও ব্যবসা শুরু করা যায়।

অতএব আপনাকে পরিশ্রম করতে হবে। তাহলে আপনি অল্প পুঁজি দিয়ে ব্যবসা করে অনেক লাভবান হতে পারবেন।

কেন ভ্যানে খাবার বিক্রি করার প্রচলন বেড়ে যাচ্ছে ?

অল্প পুঁজি থাকলেই ভ্যানে খাবার তৈরি করে বিক্রি করা যায়। কিন্তু একটি রেস্তোরাঁ খোলার জন্য অনেক পুঁজি প্রয়োজন পড়ে। তাই ভ্যানে খাবার তৈরি করে বিক্রি করার প্রচলন বেড়ে যাচ্ছে ।

আমি সবসময় নতুন জিনিস শিখতে এবং ছড়িয়ে দিতে পছন্দ করি। তাই সকল ধরনের বিজনেস আইডিয়া সম্পর্কিত নতুন বিষয় তুলে ধরাই আমার মূল লক্ষ্য।

Leave a Comment