২০২৪ সালে ৫টি বিনা পুজিতে লাভজনক ব্যবসা আইডিয়া , মাসে লক্ষ টাকা আয়

আপনি কি বিনা পুজিতে লাভজনক ব্যবসা সম্পর্কে জানতে চান ? তাহলে খুশির খবর হলো এই আর্টিকেলটি শুধু আপনার জন্য।

আমরা এমন একটি সময় পার করছি যে সময়ে অধিকাংশ ব্যক্তির চিন্তাভাবনা যে, সে ব্যবসা করবে। সফল ও নামিদামী একজন বিজনেসম্যান হবে।

কিন্তু অধিকাংশের কমন একটি প্রবলেম হলো পুঁজি। পুঁজি না থাকার কারণে ব্যবসা শুরু করা হচ্ছে না। ফলে মনের আশা পূরণ হচ্ছে না।

চিন্তার কোন কারণ নেই । আপনি যদি একজন বিজনেসম্যান হতে চান , আপনার যদি ইচ্ছাশক্তি প্রখর হয় তাহলে কেউ আপনাকে ব্যবসা করতে ঠেকাতে পারবেনা।

আপনি আপনাদের কথা চিন্তাভাবনা করে বিনা পুজিতে লাভজনক ব্যবসা সম্পর্কে আলোচনা করব। পাশাপাশি খুঁটিনাটি বিষয়গুলো তুলে ধরব।

যাতে করে আপনি খুব সহজেই ব্যবসা শুরু করতে পারেন এবং আপনার মনের আশা পূরণ করতে পারেন।

এজন্য অবশ্যই আপনাকে সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি মনোযোগ সহকারে পড়তে হবে এবং যে সম্পর্কে আলোচনা করা হবে তা প্রয়োগ করার চেষ্টা করতে হবে।

তাহলে আপনি দ্রুত সফল হবেনই। চলুন আলোচনা শুরু করা যাক।

বিনা পুজিতে লাভজনক ব্যবসা

বিনা পুজিতে লাভজনক ব্যবসা ২০২৪

আমি এখানে ঐ সমস্ত লাভজনক ব্যবসা সম্পর্কে আলোচনা করব যে ব্যবসাগুলো শুরু করতে গেলে কোন ধরনের পুঁজি লাগবে না।

তবে অবশ্যই আপনাকে কয়েকটি জিনিস ব্যয় করতে হবে। তাহলে খুব দ্রুত সফলতা লাভ করতে পারবেন। অন্যথায় সফল হতে পারবেন না। সেই বিষয়গুলো হল :

  1. পরিশ্রম করতে হবে। কোন অবস্থাতেই অলসতা করা যাবে না। কেননা অলসরা কখনো সফল হতে পারে না।
  2. ব্যবসার জন্য সময় দিতে হবে। প্রচুর সময় দিতে হবে।
  3. গ্রাহকদের সাথে সর্ব অবস্থায় ভালো ব্যবহার করতে হবে। এতে আপনার ব্যবসা দ্রুত সফলতা লাভ করবে।
  4. সর্ব অবস্থায় পর্যবেক্ষণ করতে হবে। অর্থাৎ আপনার যে সমস্ত প্রতিযোগী রয়েছে তারা কিভাবে ব্যবসা করছে , কি কি কাজ করছে ? ইত্যাদি নানান বিষয়ে সব সময় খেয়াল রাখতে হবে।

উপরে উল্লেখিত বিষয়গুলো অবশ্যই আপনাকে মেনে চলতে হবে। তাহলে আপনি খুব সহজেই ব্যবসার মধ্যে সফলতা লাভ করতে পারবেন।

১. ই- কমার্স ব্যবসা করতে পারেন।

বর্তমান সময় হলো আধুনিক যুগ। দিন যত এগোচ্ছে আধুনিকতার ছোঁয়া মানুষের জীবনে বয়ে আসছে। প্রতিটি মানুষ অনলাইনের প্রতি আগ্রহবান হচ্ছে।

কেমন যেন অনলাইন ছাড়া কিছুই বুঝেনা। এই কারণে অনলাইনে কেনাকাটা করতে খুবই পছন্দ করে। তাই এই সময়ে অনলাইনে ব্যবসা খুবই চাহিদা পূর্ণ হয়ে উঠেছে।

অতএব আপনি এই সুযোগটি কাজে লাগাতে পারেন। অনলাইনে ব্যবসা করার জন্য কোন পুঁজির প্রয়োজন হবে না।

মাত্র আপনার মেধা এবং শ্রম কাজে লাগবে। যদি আপনি আপনার মেধা এবং শ্রম সঠিক উপায়ে ব্যবহার করতে পারেন তাহলে কোন ধরনের পুঁজি ছাড়াই মাসে লক্ষ লক্ষ টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

অনলাইনে ই কমার্স ব্যবসা করার নিয়ম

১. সর্বপ্রথম আপনাকে মেধা খাটিয়ে বের করতে হবে। বর্তমানে অনলাইনে কোন সমস্ত পণ্যের চাহিদা বেশি।

২. চাহিদা পূর্ণ পণ্য বের করার পর দ্বিতীয় কাজ হল  প্রতিযোগীদেরকে চিহ্নিত করা। অর্থাৎ আপনার মত যারা ব্যবসায়ী তাদেরকে চিহ্নিত করা।

প্রথম প্রথম নতুন হিসেবে যে সমস্ত পণ্যের ক্ষেত্রে প্রতিযোগী কম ঐ সমস্ত পণ্যকে নির্বাচন করবেন।

এতে দ্রুত সফলতা লাভ করতে পারবেন। কেননা যেখানে প্রতিযোগী বেশি সেখানে নতুন হিসেবে টিকে থাকা খুবই কঠিন হয়ে উঠবে।

প্রতিযোগীদেরকে চিহ্নিত করার একটি উপায় হল :  আপনি যে পণ্য নিয়ে ব্যবসা করতে চাচ্ছেন ওই পণ্য যারা বিক্রি করছে তাদেরকে ফলো করবেন।

এজন্য আপনি তাদের ওয়েবসাইট , ফেসবুক পেজ , গ্রাহক রিভিউ ইত্যাদি নানান বিষয় ফলো করতে পারেন। এরকম আরো নানান উপায়ে রয়েছে প্রতিযোগীদেরকে চিহ্নিত করার জন্য।

৩. পণ্য সংগ্রহ করতে হবে। যেহেতু আমাদের পুঁজি নেই। তাই এক্ষেত্রে সিস্টেমগুলো : আপনি যে পণ্যগুলো বিক্রি করতে চাচ্ছেন।

এই পণ্যগুলো যে সমস্ত দোকানে বিক্রি করা হয় ঐ সমস্ত দোকানদারদের সাথে চুক্তিবদ্ধ হওয়া। তাদের বলা আমি পণ্য বিক্রি করে দিব।

এর ফলে কিছু লাভ আমাকে দিতে হবে। এভাবে প্রত্যেকটি দোকান আপনার সাথে চুক্তিবদ্ধ হতে চাবে।

এভাবে বিক্রি করতে করতে আপনি কিছু পরিমাণ পুজি সংগ্রহ করবেন। তারপর নিজেই পন্য সংগ্রহ করে বিক্রি শুরু করে দিবেন।

৪. পণ্য নির্ধারণ , সংগ্রহ ও প্রতিযোগীদের কে চিহ্নিত করার পর এখন আপনার কাজ হল পণ্য বিক্রি করা। পণ্য বিক্রি করার জন্য ভালোভাবে মার্কেটিং জানতে হবে। মার্কেটিং হল একটি ব্যবসার সফলতার ক্ষেত্রে সবচেয়ে বড় ভূমিকা রাখে।

পণ্য নিয়ে মার্কেটিং করার নিয়ম

আপনার যদি মার্কেটিং সম্পর্কে ভালো ধারণা থাকে। তাহলে অনেক ভালো বিষয়। অন্যথায় ইউটিউব , বিভিন্ন রকম ওয়েবসাইট থেকে ফ্রি মার্কেটিং শিখতে পারেন।

যখন আপনার মার্কেটিং সম্পর্কে পরিপূর্ণ ধারণা হয়ে যাবে তখন পণ্য নিয়ে মার্কেটিং শুরু করার চিন্তাভাবনা করবেন।

অন্যথায় ব্যবসায় সফলতা লাভ করতে নানান রকম প্রবলেম ফেস করতে পারেন। তাই অবশ্যই আপনাকে প্রথমত মার্কেটিং সম্পর্কে পরিপূর্ণ ধারণা নিতে হবে। এরপর ব্যবসার জন্য মার্কেটিং শুরু করবেন।

মার্কেটিং দুই ভাবে করতে পারেন।

  • ফ্রিতে মার্কেটিং করতে পারেন। এজন্য আপনাকে প্রচুর পরিশ্রম করতে হবে।
  • পেইড মার্কেটিং করতে পারেন। এজন্য আপনাকে টাকা খরচ করতে হবে। বর্তমানে অধিংশ মানুষ পেইড মার্কেটিং করে। কেননা এটা সহজ এবং অল্প সময়ে সফলতা লাভ করা যায়। পাশাপাশি নানান ধরনের মানুষদেরকে টার্গেট করে মার্কেটিং করা যায়।

এভাবে আপনি পুঁজি ছাড়া খুব সহজেই এই লাভজনক ব্যবসাটি করতে পারেন। তাই অলসতা বাদ দিয়ে আজই এই ব্যবসা করতে নেমে পরুন।

২. ড্রপ শিপিং করতে পারেন

বিনা পুজিতে লাভজনক ব্যবসা হিসেবে ড্রপ শিপিং অন্যতম। ড্রপ শিপিং হলো এমন একটি ব্যবসা যেখানে অনলাইনে আপনার দোকান আছে কিন্তু আপনার কাছে কোন ধরনের পণ্য নেই।

এক্ষেত্রে কোন ক্রেতা যখন  পণ্যের অর্ডার দিবে তখন আপনি ওই পণ্যের মালিকের কাছে অর্ডার দিবেন। এরপর পণ্যের মালিক ক্রেতার কাছে অর্ডারকৃত পণ্যটি পৌঁছে দিবে।

এক্ষেত্রে আপনার আপনার লাভ হলো কোম্পানির নির্দিষ্ট করা মূল্যের থেকে বেশি মূল্যে পন্যটি গ্রাহকের নিকট বিক্রি করা।

অর্থাৎ আপনার একটি শাড়ির দোকান রয়েছে। কোম্পানি আপনাকে শাড়ির মূল্য নির্ধারণ করে দিয়েছে ২০০০ টাকা। আপনি ওই শাড়িটি ক্রেতার কাছে বিক্রি করলেন ২৫০০ টাকা দিয়ে। এখানে আপনার লাভ হল ৫০০ টাকা। এভাবেই ড্রপ শিপিং এর  ব্যবসা করা হয়।

ড্রপ শিপিং ব্যবসা করার নিয়ম

  • সর্বপ্রথম আপনাকে বের করতে হবে। বর্তমানে অনলাইনে কোন সমস্ত পণ্যের চাহিদা বেশি।
  • চাহিদা পূর্ণ পণ্য বের করার পর দ্বিতীয় কাজ হল  প্রতিযোগীদেরকে চিহ্নিত করা। অর্থাৎ আপনার মত যারা ব্যবসায়ী তাদেরকে চিহ্নিত করা। 
  • এরপর আপনাকে সুন্দর এবং আনকমন ডিজাইনের একটি ওয়েবসাইট তৈরি করতে হবে। সেখানে চাহিদা পূর্ণ পণ্যের বিভিন্ন রকম সুন্দর সুন্দর ছবি পোস্ট করতে হবে। ভালোভাবে এসিও করতে হবে । যাতে করে গ্রাহকরা খুব সহজেই খুঁজে পায়।

এরপর গ্রাহকরা যখন কোন একটি পণ্যের অর্ডার দিবে তখন আপনি উক্ত পণ্যের মালিকের কাছে অর্ডার দিবেন।

এভাবে খুব সহজে বিনা পুঁজিতে লাভজনক এই ব্যবসাটি খুব সহজে করতে পারবেন। তাই দেরি না করে আজই এই চমৎকার ব্যবসাটি শুরু করে দিন।

৩. এফিলিয়েট মার্কেটিং করতে পারেন

বিনা পুজিতে লাভজনক ব্যবসা হিসেবে এফিলিয়েট মার্কেটিং অনেক প্রসিদ্ধ। বর্তমান সময়ে অনেকে এফিলিয়েট মার্কেটিং করে প্রতি মাসে লক্ষ লক্ষ টাকা ইনকাম করছে।

কেননা এফিলিয়েট মার্কেটিং অনেক সহজ। শুধু মার্কেটিং করে কোন কোম্পানির সার্ভিস বা প্রোডাক্ট বিক্রি করে দেওয়া।

এর ফলে উক্ত কোম্পানি আপনাকে কমিশন দেবে। এই হিসেবে এফিলিয়েট মার্কেটিং এর মধ্যে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ দিক হল মার্কেটিং।

আপনি যত মার্কেটিং এর মধ্যে পারদর্শী হবেন তত দ্রুত এই ব্যবসায় সফলতা লাভ করতে পারবেন।

যদি আপনি মার্কেটিং পারেন তাহলে তো ভালো কথা। আর যদি মার্কেটিং এর ব্যাপারে কোন ধরনের ধারণা না থাকে তাহলে খুব সহজেই মার্কেটিং শিখতে পারেন। মার্কেটিং দুইভাবে শিখতে পারেন।

  • ফ্রিতে শিখতে পারেন।
  • টাকা খরচ করে মার্কেটিং শিখতে পারেন।

ফ্রিতে শিখার জন্য ইউটিউব ও বিভিন্ন রকমের ওয়েবসাইট পেয়ে যাবেন। সেখানে অহর অহর ভিডিও পাবেন। সেখান থেকে খুব সহজেই ফ্রিতে মার্কেটিং শিখতে পারেন।

আবার ইচ্ছে করলে টাকা খরচ করে শিখতে পারেন। বর্তমানে এরকম অনেক কোম্পানি রয়েছে যারা টাকার মাধ্যমে মার্কেটিং শেখায়। এসব কোম্পানি থেকে খুব সহজেই মার্কেটিং শিখতে পারেন।

যখন আপনি মার্কেটিং এর উপর পারদর্শী হয়ে যাবেন। তখন এফিলিয়েট মার্কেটিং শুরু করবেন। এভাবে খুব সহজেই এই ব্যবসায় সফলতা লাভ করতে পারবেন।

৪. ব্লগ তৈরি করে ব্যবসা

বিনা পুজিতে লাভজনক ব্যবসা হিসেবে এই ব্যবসাটি বর্তমান সময় অনেক সহজ এবং চমৎকার। আপনি যদি লেখা- লিখি পছন্দ করেন তাহলে এই ব্যবসাটি আপনার জন্য। 

ব্যবসা করার নিয়ম

ফ্রিতে বর্তমানে খুব সহজেই একটি ওয়েবসাইট তৈরি করা যায়। যেমন ব্লগার ডট কম থেকে খুব সহজেই ফ্রিতে ওয়েবসাইট তৈরি করা যায়। 

ওই ওয়েবসাইটে প্রতিদিন চমৎকার চমৎকার লেখা পাবলিশ করবেন। যদি হাই কোয়ালিটি মানের আর্টিকেল লিখেন।

দেখবেন ধীরে ধীরে বিভিন্ন রকম পাঠক আপনার ব্লগে বা ওয়েবসাইটে আসতে থাকবে। এভাবে প্রতিদিন নিয়মিত সময় দিন। এখান থেকে কয়েক ভাবে ইনকাম করতে পারবে । যেমন :

  • গুগল এডসেন্স এর মাধ্যমে।
  • এফিলিয়েট মার্কেটিং করে ।
  • নিজের পণ্য বিক্রি করে।

ইত্যাদি এ সমস্ত উপায়ে ব্লগে লেখালেখি করে বিনা পুঁজিতে এই চমৎকার ব্যবসাটি করতে পারবেন।

৫ . একটি ট্রেনিং সেন্টার খুলতে পারেন।

এ ব্যবসাটি বর্তমানে অনেক লাভজনক। কেননা এই ব্যবসা করতে কোন ধরনের পুঁজি লাগে না। আপনি যে বিষয়ে পারদর্শী ওই বিষয়ে এ শিক্ষার্থীদেরকে পড়াবেন।

আপনি যে বিষয়ে পারদর্শী একমাত্র ওই বিষয়েই পড়াবেন। এতে খুব দ্রুত সফলতা লাভ করতে পারবেন। কোন ধরনের প্রবলেম ছাড়াই। অন্যথায় নানান ঝামেলায় পড়তে পারেন।

 পরিশেষে বলবো :  উপরে  বিনা পুজিতে লাভজনক ব্যবসা সম্পর্কে কয়েকটি তথ্য দিলাম।  যদি এই তথ্যগুলা আপনার উপকার দিয়ে থাকে । তাহলে অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন ।  তাই বসে না থেকে আজই আপনি এই ব্যবসা শুরু করে দিন ।  ধন্যবাদ ।

আরো পড়ুন বর্তমানে সবচেয়ে লাভজনক ব্যবসার ১৬টি আইডিয়া ২০২৪

আমি সবসময় নতুন জিনিস শিখতে এবং ছড়িয়ে দিতে পছন্দ করি। তাই সকল ধরনের বিজনেস আইডিয়া সম্পর্কিত নতুন বিষয় তুলে ধরাই আমার মূল লক্ষ্য।

Leave a Comment