২০২৪ সালে ১০০০ টাকায় ব্যবসা করার দারুণ ১০টি আইডিয়া, প্রতিমাসে ৩৫০০০ টাকা আয়

আপনি কি ১০০০ টাকায় ব্যবসা সম্পর্কে জানতে চাচ্ছেন ? তাহলে আর্টিকেলটি শুধু আপনার জন্য।

বর্তমানে ব্যবসা সবাই করতে চায়। কিন্তু পুঁজি কম হওয়ার কারণে কেউ ব্যবসা করার সাহস পায় না।

কেননা বর্তমানে ভালো একটি ব্যবসা শুরু করতে গেলে অনেক পুঁজি লাগে। এখানে প্রত্যেকে বড় একটি ধাক্কা খায়।

ফলে মনের মধ্যে ব্যবসা করার চাহিদা থাকলেও সরাসরি ব্যবসা করা আর হয়ে ওঠে না। তবে আপনি জেনে খুশি হবেন বর্তমান সময়ে একেবারে কম পুঁজি দিয়ে ব্যবসা শুরু করা সম্ভব।

শুধু আপনার পরিশ্রম এবং মেধা ঘাটাতে হবে। তাহলে অল্প সময় আপনি সফলতার মুখ দেখতে পারবেন।

তাই আমি আপনাদের সুবিধার্থে ১০০০ টাকায় ব্যবসা করা যাবে কিনা ? যদি ব্যবসা করা যায় তাহলে কি কি ব্যবসা করা যাবে এবং কি কি পদ্ধতি গ্রহণ করতে হবে এ ব্যাপারে বিস্তারিতভাবে আলোচনা করব।

আশা করি আপনি পরিপূর্ণভাবে আইডিয়া পাবেন। এজন্য অবশ্যই আপনাকে সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি পড়তে হবে মনোযোগ সহকারে।

১০০০ টাকায় ব্যবসা

১০০০ টাকায় ব্যবসা ২০২৪

হ্যাঁ অবশ্যই ১০০০ টাকায় বর্তমান সময়ে অনেক ব্যবসা করতে পারবেন। এজন্য অবশ্যই আপনাকে পরিশ্রম করতে হবে এবং মেধা খাটাতে হবে।

আমি এখানে ঐ সমস্ত ব্যবসা সম্পর্কে আলোচনা করব যে ব্যবসাগুলো বর্তমানে খুবই প্রচলিত। এখানে লস খাওয়ার কোন সম্ভাবনা নেই।

পরিশ্রম করলে এবং সময় দিলে খুব দ্রুত সফলতা লাভ করতে পারবেন। তাহলে চলুন আলোচনা শুরু করা যাক।

১. ফুলের ব্যবসা করতে পারেন।

ফুল সকলের কাছে অনেক পছন্দের। এজন্য ফুলের চাহিদা অনেক বেশি। বিশেষ করে বিভিন্ন দিবসে, বিভিন্ন অনুষ্ঠানে, বিয়ের অনুষ্ঠান , জন্মদিনের অনুষ্ঠানে ইত্যাদি এরকম নানান অনুষ্ঠানে ফুলের চাহিদা অনেক বেড়ে যায়।

আপনি এই সমস্ত উৎসবকে কাজে লাগাতে পারেন। আর যদি পারেন তাহলে প্রতিদিনই ফুল বিক্রি করতে পারেন। আর ১০০০ টাকায় ব্যবসা হিসেবে এই ব্যবসাটি খুব সহজেই করতে পারবেন।

ফুলের ব্যবসা করার নিয়ম

  • আপনাকে সর্বপ্রথম ভালো একটি স্থান নির্বাচন করতে হবে। যেমন : বিভিন্ন পার্ক , স্কুল কলেজ , শহর , উপশহর , বাজার , বাস স্টেশন , রেল স্টেশন ইত্যাদি এরকম লোক সমাগম স্থান বেছে নিতে হবে। এতে করে আপনার ফুলের ব্যবসা বেড়ে যাবে।
  • দুইভাবে ফল বিক্রি করতে পারেন। ১. হেঁটে হেটে বিক্রি করতে পারেন। ২. একটি স্থানে বসে ফুলকে নানান ভাবে সাজিয়ে বিক্রি করতে পারেন।
  • ফুলের পাইকারি দোকান থেকে ফুল ক্রয় করে নিবেন। এতে খুব কম দামে ফুল পাবেন।
  • আকর্ষণীয় আকর্ষণ ফুল সংগ্রহ করার চেষ্টা করবেন।

এভাবে প্রতিদিন ১০০০ টাকা ইনভেস্ট করে ফুল বিক্রি করতে পারলে ২০০ থেকে ৩০০ টাকা লাভ হবে। তাই দেরি না করে আজই এই অল্প পুঁজি দিয়ে ব্যবসা শুরু করে দিন।

২. নতুন পদ্ধতিতে চা বিক্রি করতে পারেন।

চা সকলের কাছে প্রিয় একটি খাবার। চায়ের দোকান অলিগলিতে অনেক আছে। তাহলে নতুন পদ্ধতিতে কিভাবে আবার চায়ের দোকান দেওয়া যায়।

এক্ষেত্রে আমি বলব আপনার যেহেতু পুঁজি কম তাই আপনাকে ইউনিক পদ্ধতিতে চা বিক্রি করতে হবে। ১০০০ টাকায় ব্যবসা হিসেবে এই ব্যবসাটি খুব সহজেই করতে পারবেন।

ইউনিক পদ্ধতিতে চা বিক্রি করার নিয়ম হলো

  • আপনাকে চা তৈরি করতে হবে ইউনিক পদ্ধতিতে। অর্থাৎ নানা রকম চা তৈরি করতে হবে। যেমন : কোল্ড চা , গ্রীন চা , মসল্লা চা , লেবুর চাই ইত্যাদি।
  • ইউনিক ফ্লেভার দেওয়ার চেষ্টা করবেন। সবার চা থেকে আলাদা করার চেষ্টা করবেন। এতে করে গ্রাহকরা আপনার যাকে খুব দ্রুত গ্রহণ করবে।
  • যারা ইউনিক পদ্ধতিতে চা বিক্রি করছে তাদেরকে ফলো করার চেষ্টা করবেন।
  • আপনার এই ছোট ব্যবসাকে নিজের বুদ্ধি খাটিয়ে আকর্ষণীয় ভাবে প্রেজেন্ট করার চেষ্টা করবেন।

আশা করি সমস্ত পদ্ধতি গ্রহণ করলে মাত্র এক হাজার টাকা বিনিয়োগ করে খুব সহজেই অনেক লাভবান হতে পারবেন।

৩. কাঁচামালের ব্যবসা।

কাঁচামাল খুবই চাহিদা পূর্ণ একটি ব্যবসা। নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য। বর্তমানে প্রতিটি মানুষ প্রতিদিন কাঁচামাল ক্রয় করে থাকে।

এজন্য এ ব্যবসার চাহিদা অনেক বেশি। আপনি বিভিন্ন কৃষকদের কাছ থেকে সরাসরি তাজামাল ক্রয় করবেন।

এরপর বাজারে বা যেখানে সবজি বিক্রি করা হয় সেখানে বসে বসে বিক্রি করবেন। এ ব্যবসা মাত্র আপনি ১০০০ টাকা দিয়ে শুরু করতে পারবেন। পুজি বেশি লাগবে না। তাই দেরি না করে আজি এ ব্যবসা শুরু করুন।

৪ .১০০০ টাকায় ব্যবসা হিসেবে চকলেট করতে পারেন।

ব্যবসাটি দেখতে সিম্পল মনে হলেও ইনকাম অনেক বেশি হবে। মাত্র ১০০০ টাকা ইনভেস্ট করে প্রতি প্রতিমাসে ৩০০০০ থেকে ৩৫ হাজার টাকা ইনকাম করতে পারবেন খুব সহজেই।

চকলেটের ব্যবসা করার নিয়ম

  • সর্বপ্রথম আপনাকে চকবাজারের মতো পাইকারি বাজার থেকে চকলেট সংগ্রহ করতে হবে।
  • চকলেট টি অবশ্যই ইউনিক অথবা আনকমন হতে হবে। এতে গ্রাহকরা ক্রয় করতে আগ্রহ বোধ করবে।
  • এরপর মার্কেটিং করে বিক্রি করতে হবে।
  • দুইভাবে আপনি বিক্রি করতে পারেন। পাইকারি হিসেবে বিভিন্ন দোকানে দোকানে বিক্রি করতে পারেন।
  • খুচরা হিসাবে বিভিন্ন কলেজ , স্কুল ,  বাজার , রেল স্টেশন , বাস স্টেশন অথবা বাসে  মার্কেটিং করে বিক্রি করতে পারেন।
  • মোটকথা এরকম লোকসমাগম স্থানে বিক্রি করতে পারেন।

আশা করি আপনি ভালোভাবে বুঝতে পেরেছেন। তাই দেরি না করে আজ এই ব্যবসাটি শুরু করে দিন।

৫. কটন ক্যান্ডি বা হাওয়াই মিঠাই বিক্রি করতে পারেন।

কটন ক্যান্ডিকে আমরা হাওয়াই মিঠাই বলে থাকি। কটন ক্যান্ডি খুবই মজাদার খাবার। বিশেষ করে বাচ্চারা খুবই পছন্দ করে।

এ ব্যবসাটি একেবারে অল্প পুঁজি দিয়ে শুরু  করতে পারে। তবে মেশিন কেনার জন্য প্রথমে আপনাকে ২০০০ থেকে ২৫০০ টাকা ইনভেস্ট করতে হবে।

দারাজ থেকে খুব সহজেই মেশিন ক্রয় করতে পারবেন। এরপরে কটন ক্যান্ডি তৈরি করার জন্য মাত্র ৫০০ থেকে ১০০০ টাকা ইনভেস্ট করলেই হয়ে যাবে। বরং আরো কম খরচ হবে।

কটন ক্যান্ডি ব্যবসা করার নিয়ম

  • সর্বপ্রথম আপনাকে কটন ক্যান্ডি মেশিন ক্রয় করতে হবে।
  • এরপর চিনি লাগবে।
  • ফুড কালার লাগবে।
  • এ সমস্ত জিনিস দ্বারাই খুব সহজে কটন ক্যান্ডি বা হাওয়াই মিঠাই তৈরি করতে পারবেন।

গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো ভালো একটি স্থান নির্বাচন করতে হবে । যেমন: বিভিন্ন পার্ক , স্কুল কলেজ , শহর , উপশহর , বাজার , বাস স্টেশন , রেল স্টেশন ইত্যাদি এরকম লোক সমাগম স্থান বেছে নিতে হবে। এতে করে আপনার ব্যবসা বেড়ে যাবে।

মোটামুটি কটন ক্যান্ডিতে দুই থেকে তিন টাকা খরচ হবে। কিন্তু এগুলোকে আপনি নিম্নে ১০ টাকা বিক্রি করতে পারবেন।

এই ব্যবসায় লাভ অনেক বেশি। তাই দেরি না করে আজ এই চমৎকার ব্যবসাটি শুরু করে দিতে পারেন।

৬. কাঁচামালের হোম ডেলিভার ব্যবসা করতে পারেন।

কাঁচামাল খুবই নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য।  তাজা সবজি খেতে সকলেই পছন্দ করে। এ ব্যবসাটি খুবই ইউনিক। প্রতিযোগী খুবই কম।

কাঁচামালের হোম ডেলিভার ব্যবসাটি শুরু করার জন্য নিয়ম হলো

  • সর্বপ্রথম যেখানে কাঁচামাল ডেলিভারি দিবেন সেই এলাকাকে টার্গেট করবেন।
  • এরপর ক্রেতাদের সাথে সরাসরি কথা বলবেন।
  • তাদের চাহিদা বুঝবেন।
  • এরপর সরাসরি গ্রাম অঞ্চল থেকে অল্প পরিসরে তাদের চাহিদা অনুযায়ী সবজি সংগ্রহ করবেন।
  • এরপর তাদের কাছে ঐ সবজিগুলো পৌঁছে দেবে।

১০০০ টাকায় ব্যবসা হিসেবে এই ব্যবসাটি খুব সহজেই করতে পারবেন। এখানে পুঁজি বেশি লাগবে না। আশা করি আপনি বুঝতে পেরেছেন।

৭. ফুচকার ব্যবসা।

ফুচকা ছোট বড় সকলের কাছে প্রিয় খাবার। এই ব্যবসার চাহিদা অনেক বেশি। মাত্র এক হাজার টাকা দিয়ে ব্যবসা খুব সহজে শুরু করতে পারবেন।

ফুচকার ব্যবসা করার নিয়ম

  • ভালো একটি স্থান নির্বাচন করতে হবে । যেমন: বিভিন্ন পার্ক , স্কুল কলেজ , শহর , উপশহর , বাজার , বাস স্টেশন , রেল স্টেশন ইত্যাদি এরকম লোক সমাগম স্থান বেছে নিতে হবে। এতে করে আপনার ব্যবসা বেড়ে যাবে।
  • ফুচকা তৈরি করার জন্য বিভিন্ন আসবাবপত্র পাইকারি বাজার থেকে ক্রয় করবেন।
  • ফুচকা অবশ্যই মজাদার করে তৈরি করতে হবে। যাতে করে আকর্ষিত হয় গ্রাহকরা। এজন্য আপনি অভিজ্ঞ লোকদের কাছ থেকে শিখে নিতে পারেন।

এ পদ্ধতিতে খুব সহজেই অল্প সময় সফলতা লাভ করতে পারবেন।

৮. ১০০০ টাকায় ব্যবসা হিসেবে কফি শপ দিতে পারেন।

কফি ধীরে ধীরে অনেক জনপ্রিয় হয়ে উঠছে চা এর মত। অতএব আপনি ছোটখাটো একটি কফি শপ খুলে ১ হাজার টাকা দিয়ে এই ব্যবসা শুরু করতে পারেন।

কফি শপের ব্যবসার নিয়ম

  • ভালো একটি স্থান নির্বাচন করতে হবে। যেমন: বিভিন্ন পার্ক , স্কুল কলেজ , শহর , উপশহর , বাজার , বাস স্টেশন , রেল স্টেশন ইত্যাদি এরকম লোক সমাগম স্থান বেছে নিতে হবে। এতে করে আপনার ব্যবসা বেড়ে যাবে।
  • কফি মজাদার করে তৈরি করতে হবে। এজন্য অভিজ্ঞ লোকদের কাছ থেকে শিখে নিতে পারেন।
  • কফি তৈরির উপকরণগুলো সংগ্রহ করতে হবে। যেমন : কফির পাউডার , চিনি, দুধ , চুলা ইত্যাদি।

আশা করি আপনি ভালোভাবে বুঝতে পেরেছেন।

৯. ব্লগে লেখালেখি করে ব্যবসা করতে পারেন।

বর্তমানে অন্যতম উপায় হল ব্লগিং করা। ঘরে বসে অল্প সময়ে প্রতিমাসে হাজার হাজার টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

বর্তমানে প্রচুর মানুষ ব্লগে লেখালেখি করে লক্ষ লক্ষ টাকা ইনকাম করছে। আপনিও পারবেন শুধু পরিশ্রম এবং মেধা খাটাতে হবে।

ব্লগিং করার নিয়ম

  • এজন্য আপনি গুগলের ব্লগার ডট কমে একটি ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারেন।
  • এরপর একটি ডটকম ডোমেন নেবেন। এখানে ৮০০ থেকে ৯০০ টাকা খরচ হতে পারে।
  • যে বিষয় লেখালেখি করবেন সে বিষয়ে ডোমেন নাম নেওয়ার চেষ্টা করবেন।

১০. বেলুনের ব্যবসা ।

বেলুন বাচ্চাদের জন্য খুবই জনপ্রিয় একটি খেলনা। ১০০০ টাকায় ব্যবসা হিসেবে এই ব্যবসাটি খুব সহজেই করতে পারবেন। প্রচুর টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

কেননা প্রতিটি বেলুনে খরচ হবে দুই থেকে তিন টাকা। কিন্তু সেগুলোকে নিম্নে ১০ টাকা বিক্রি করতে পারবেন। তাহলে বুঝতে পারছেন বেলুনে লাভ কত।

বেলুনের ব্যবসা করার নিয়ম

  • ভালো একটি স্থান নির্বাচন করতে হবে। যেমন বিভিন্ন মেলা ,বিভিন্ন পার্ক , স্কুল কলেজ , শহর , উপশহর , বাজার , বাস স্টেশন , রেল স্টেশন ইত্যাদি এরকম লোক সমাগম স্থান বেছে নিতে হবে। এতে করে আপনার ব্যবসা বেড়ে যাবে।
  • নানান রঙের বেলুন ক্রয় করবেন।
  • মুখ দিয়ে ফুলাতে পারেন অথবা গ্যাসের মাধ্যমে ফুলাতে পারেন।

আশা করি আপনি বুঝতে পেরেছেন। তাই দেরি যদি না করে আজ এই ব্যবসা শুরু করেন।

পরিশেষে বলবো :

উপরে ১০০০ টাকায় ব্যবসা সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা  করলাম। অতএব আপনি যদি এই ব্যবসা করতে চান ।

তাহলে অবশ্যই আপনাকে সর্বপ্রথম পরিপূর্ণভাবে ধারণা নিতে হবে । এরপর আপনাকে মার্কেট গবেষণা করতে হবে।

এরপর আপনি ব্যবসা শুরু করে দিবেন উপরের পদ্ধতি অনুযায়ী। লেখাতে ভালো লেগে থাকলে অবশ্যই জানাবেন। ধন্যবাদ।

আরো পড়ুন বর্তমানে সবচেয়ে লাভজনক ব্যবসার ১৬টি আইডিয়া ২০২৪

FAQ

১০০০ টাকায় ব্যবসা করা সম্ভব কিনা ?

হ্যাঁ অবশ্যই ১০০০ টাকায় বর্তমান সময়ে অনেক ব্যবসা করতে পারবেন। এজন্য অবশ্যই আপনাকে পরিশ্রম করতে হবে এবং মেধা খাটাতে হবে।
যেমন : ফুলের ব্যবসা , ফুচকার ব্যবসা , কফি শপের ব্যবসা , কাঁচামালের হোম ডেলিভার ব্যবসা ইত্যাদি ।

আমি সবসময় নতুন জিনিস শিখতে এবং ছড়িয়ে দিতে পছন্দ করি। তাই সকল ধরনের বিজনেস আইডিয়া সম্পর্কিত নতুন বিষয় তুলে ধরাই আমার মূল লক্ষ্য।

Leave a Comment